Home যেসব কথা কানে আসে সুরের প্রতিও রাজশাসন জারি করা যায়! 

সুরের প্রতিও রাজশাসন জারি করা যায়! 

by admin

বলা হয়, শিল্প সমাজের দর্পণ৷ সাম্প্রতিক সমাজ রাজনীতির ছবি ফুটে ওঠে শিল্পের মাধ্যমে৷ তাই শাসকের বিপক্ষে কথা বললে শিল্পের প্রতি নেমে এসেছে আঘাত৷ জারি করা হয়েছে ফতোয়া৷ কিন্তু সুরের ওপর ফতোয়া জারি এ কি সম্ভব? এমন এক যন্ত্র যা মানুষ শাসকের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে বাজাতে পারেনি৷ তাই তার বিলুপ্তি ঘটেছে৷ এমন একটি বাদ্যযন্ত্র নিষদ্ধ হয়েছিল আফ্রিকার দেশ উগান্ডায়।
১৯৬৬ সালে উগান্ডার রাষ্ট্রপতি হন মিল্টন আবোটি। দেশকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য  তিনি কিছু প্রথাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন। উগান্ডার অন্তর্গত বুসোগাতে রাজতন্ত্র শেষ করার জন্য রাজকীয় বাদ্যযন্ত্র বিগ‌ওয়ালা নিষিদ্ধ করে দেন।

 

কোনো একটি নির্দিষ্ট রাজ্যের রাজকীয় প্রতীককে আলাদা করে গুরুত্ব দেওয়া হলে সকল্কে সমান অধিকার দেওয়া হয় না৷  তাই তার এমন সিদ্ধান্ত৷ মানুষ আস্তে আস্তে এই বাদ্যযন্ত্র বাজানো ছেড়ে দিলেন শাসকের শাসনের চাপে৷ ১৯৯০ সালে উগান্ডার তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ইয়াওয়ারি মুসভেনি বিগওয়ালার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেন।  তিনি  প্রাচীন বাদ্যযন্ত্রটি সংরক্ষণ করার জন্য উগান্ডার  বিশ্ববিদ্যালয়ের পারফর্মিং আর্ট টিচার ইসিবিরিয়কে এই বিষয়ে দায়িত্ব দেন৷  ২০১২ সালে মাত্র দুজন বিগ‌ওয়ালা বাদককে খুঁজে পাওয়া যায়৷

 

 

সুশান্ত সিং রাজপুতের জন্মদিনে জানুন অভিনেতার অজানা কিছু কথা

উগান্ডায় লাউকে বলা হয় গর্ডস। উগান্ডাবাসীরা গর্ডস সংগ্রহ করে প্রায় একমাস ফায়ারপ্লেসের উপর রেখে দেন৷ ফায়ারপ্লেসের হালকা উত্তাপে এগুলো শুকোয়৷ এরফলে  লাউগুলো দীর্ঘাকৃতি হয়। তবে নতুন বাদ্যযন্ত্র তৈরি করার জন্য  প্রয়োজনীয় বীজ কেউই খুঁজে পাননি। যেহেতু এগুলো প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্টি হয় তাই দীর্ঘসময় শাসনের জাঁতাকলে পড়ে হারিয়ে যেতে বসেছে এই বাদ্যযন্ত্র

Related Videos

Leave a Comment